Desperate love By Nilima Zabin Tanmona Part-02 - Tricky Tune BD

Recent Posts

test banner

Breaking

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

Tuesday, 12 March 2019

Desperate love By Nilima Zabin Tanmona Part-02

Desperate love  By Nilima Zabin Tanmona  Part-02




-ম্যাম আসব? (মিমের PA মিস শৈলি)
-Why not. plz come.
-ম্যাম একটা কথা ছিল।
-হুম বলো। (ল্যাপটপ অন করতে করতে)
-চৌধুরী গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ আপনার সাথে নেক্সট প্রজেক্ট নিয়ে ডিল করতে চায়।
-অর্নীল চৌধুরী? (ল্যাপটপ থেকে হাত সরিয়ে চেয়ারে হ্যালান দিয়ে)
-ইয়েস ম্যাম।
-কবে দেখা করতে চায় সে?
-আপনি বললে আজ বিকেলে তার কনফারেন্স এর জন্য রাজী।
-না আগে কনফারেন্স নয়। আগে আমার সাথে কথা তারপর কনফারেন্স।
-ওকে ম্যাম। তাহলে তাকে আসার জন্য বলে দিব?
-ইয়াহ।

শৈলি যাওয়ার পর মিম ভাবছে হঠাৎ চৌধুরী ইন্ডাস্ট্রিজ কেন আমার সাথে প্রজেক্ট লঞ্চ করতে চায়? মিম এসব ভাবনা সরিয়ে কাজে মনোযোগ দিল। তারপর তার বাপিকে ফোন দিয়ে বলল সে অফিস পোঁছে গেছে।

লাঞ্চ টাইমে মিমের সেল ফোন বাজছে সেইদিকে মিমের খেয়াল নেই। ও কাজ করেই যাচ্ছে। শৈলি কেবিনে এসে বলল

-ম্যাম আপনার ফোন।
-ওহ শিউর।
-হ্যালো মিম রায়হান স্পিকিং।
-অর্নীল
-আপনি?
-হুম।
-আমার পারসোনাল নাম্বার কোথায় পেলেন? (রাগে গজগজ করতে)
-ম্যাম রেগে যাবেন না। আসলে আজকে কয়টায় আসব?
-কেন? মিস শৈলি আপনাকে বলে দেয়নি?
-হ্যাঁ।
-তাহলে ফোন কেন করলেন? (রেগে গিয়ে)
-লাঞ্চ টাইম লাঞ্চ করেন। কাজ অফ রাখেন।
-What the heck!! আমার বিষয়ে আপনি কথা বলার কে? (মিম দাঁড়িয়ে যায়)

অর্নীল ভয়ে ফোন কেটে দেয়। শৈলিও প্রচন্ড ভয় পেয়ে যায় মিমের রাগ দেখে।

-শৈলি আমার জন্য কিছু নিয়ে আসো। (ফোন রেখে চেয়ারে বসতে বসতে)
-ম্যাম কি খাবেন? (ভয়ে ভয়ে)
-শৈলির দিকে রাগী দৃষ্টীতে তাঁকিয়ে বলল স্যান্ডউইচ।
-ওকে ম্যাম এখনি নিয়ে আসছি। (শৈলি কোনোরকমে পালিয়ে গেল)

এইদিকে অর্নীল ফোন কাটার পর থেকে পানি খাচ্ছে। আকাশ জিজ্ঞেস করলো

-Sir, Anything wrong with u?
-No I am alright.
-বিকেলে কখন বের হবেন?
-৪ টার সময়।
-এখন লাঞ্চে কি খাবেন?
-স্যান্ডউইচ নিয়ে আসতে বলো।
-ওকে স্যার।

লাঞ্চ শেষ করে অর্নীল আর আকাশ পেপারস নিয়ে বেরিয়ে গেল। অর্নীল আকাশকে সব পেপারস বুঝিয়ে দিচ্ছে। ৪ টার তিন মিনিট আগে অর্নীল আর আকাশ মিমের কোম্পানিতে গিয়ে পৌঁছালো। শৈলি তাদেরকে ওয়েলকাম করল। মিমের কেবিনে যাওয়ার জন্য পারমিশন নিল। মিম যেতে বলল।

-Good afternoon miss Mim. (অর্নীল)
-Good afternoon. Take your seat.
-শিউর।

শৈলি আর আকাশ দুইজন ফাইল হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। অর্নীল আর আকাশ মিমের কেবিনটা দেখে অবাক হয়ে যায়। একদম কিডস জোন এর মত মিমের কেবিন। সব জায়গায় টেডি বিয়ার। আর বাচ্চাদের জিনিসপত্র। কেবিনটা একবার ভাল করে দেখে অর্নীল। তারপর মিমের সাথে কথা বলে।

-Let's start our conversation.
-First of all,, রায়হান গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ এর রুলস তো জানেনই?
-ইয়াহ।
-এগ্রিমেন্ট করার আগে প্রেজেন্টেশন করতে হয়। ৫ টা International team এর সাথে আগামীকাল কনফারেন্স হবে। যার যার কোম্পানির এমডি সেই প্রেজেন্টেশন করবে। যে কোনো একটা কোম্পনির সাথে আমি প্রজেক্ট সাইন করব। যার প্রেজেন্টেশন ভাল আমি তাকেই সিলেক্ট করব। Hope so, বুঝতে পেরেছেন? (পেন্সিল ঘুরাতে ঘুরাতে)
-That's a good point. আমি আসব। কয়টায় কনফারেন্স?
-সকাল ১১ টা। আর পেপারস গুলো আমায় দিয়ে যাবেন। চেক করব।
-শিউর। আকাশ??
-বলুন স্যার।
-পেপারস গুলো ওনাকে বুঝিয়ে দাও।
-No need. আমি নিজেই দেখে নিব। (papers হাতে নিয়ে)
-As ur wish. আজ তাহলে আসি কাল দেখা হচ্ছে।
-Yeah.

গাড়িতে আকাশ অর্নীলকে বলল

-স্যার ম্যাম এর কেবিনটা দেখেছেন?
-ওনার কি বেবি খুব পছন্দের নাকি?
-তাই তো মনে হলো। উনি নাকি ওনার কেবিনে কাউকে ঢুকতে দেন না ওনার PA ছাড়া।
-তুমি কিভাবে জানলে?
-ওনার PA বলল।

এরপর অর্নীল নিজের অফিসে চলে আসে। আজকে তার মাম্মাম আমেরিকা থেকে ব্যাক করবে। তাই অর্নীল আকাশের উপর সব দায়িত্ব দিয়ে এয়ারপোর্ট চলে গেল। আর বলে গেল কালকের কনফারেন্স এর প্রেজেন্টেশন রেডি রাখতে।

রাত ৮ টায় অর্নীল তার মা কে নিয়ে বাসায় আসলো।

-আম্মু তুমি রেস্ট নাও। আমি ফ্রেশ হয়ে আসছি। (অর্নীল চলে গেল)
-আচ্ছা। ফ্রেশ হয়ে আসো একসাথে খাব।
-ওকে। তুমি রেস্ট নাও।

কিছুক্ষন পর অর্নীল খাবার টেবিলে আসলো। অর্নীলের মা বললেন

-আব্বু তোমায় তো বিয়ে করতে হবে? মেয়ে দেখি? আর কত একা থাকবে?
-আম্মু এখনি না।
-কাউকে কি পছন্দ আছে?
-না তেমন কেউ নেই। তবে ক্রাশ আছে।
-কে সে? আমার অর্নীলের ক্রাশ!
-মিম রায়হান।
-ইকুয়াল পজিশনে তোমার সাথে যে আছে সেই মিম রায়হান?
-ইয়েস আম্মু।
-দেখতে হবে তো!
-এই নাও ছবি(মোবাইল এগিয়ে দিয়ে)
-মাশায়াল্লাহ অনেক সুন্দর তো!
-হ্যাঁ আ্ম্মু।কালকে ওনার সাথে প্রেজেন্টেশন আছে। দোয়া কর যাতে ওর কোম্পানির সাথে আমার ডিলটা হয়।
-আমার অর্নীল পারবে। (গালে হাত দিয়ে)
-ধন্যবাদ মা।
-বিয়ের কথা বলি মিমের সাথে?
-না আম্মু। তুমি কি পাগল?
-কেন?
-এমনি।

চলবে...........................

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here